June 28, 2022, 3:36 pm


নিজস্ব প্রতিবেদক

Published:
2022-06-12 18:08:00 BdST

সরকারী কর্মকমিশনের পত্র জাল, দুদকের তদন্তে ধীরগতিজনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী প্রশান্ত কুমার বোসের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়েরের আবেদন


জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ৩৭ জেলা শহরে পানি সরবরাহ প্রকল্পের উপ-সহকারী প্রকৌশলী প্রশান্ত কুমার বোসের বিরুদ্ধে সরকারী কর্মকমিশনের পত্র জাল করায় সরকারি নথি জাল করার অপরাধে ফৌজদারি মামলা দায়ের ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিগত ১৩/০১/২০১৯ ইং তারিখে রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবরে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলীর পক্ষে নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ গোলাম মোক্তাদির একটি পত্র প্রেরন করেন। যার স্মারক নং- ৪৬.০৩.০০০০.০০১.১৯.০০৮.৮৮-১৫৩৬ (চঃ দা)।

একই সাথে মোঃ ইবনে মায়াজ প্রামানিককে প্রশান্ত কুমার বোসের বিভিন্ন আদালতে চলমান মামলা বিষয়ে সংশ্লিষ্ট আদালতে যোগাযোগ করার জন্য ফোকাল পয়েন্ট কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়। 

০৩/১১/২০২০ ইং তারিখে ইবনে মায়াজ প্রামানিক পুনরায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, রমনা থানা; ঢাকা বরাবরে প্রশান্ত কুমার বোসের বিরুদ্ধে রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী প্রকৌশলী পদে নিয়োগ লাভের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশনের সুপারিশ জাল করায় সরকারি নথি জাল করার অপরাধে ফৌজদারি মামলা দায়ের ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করেন।

উক্ত পত্রে তিনি পূর্বে মামলা দায়েরের বিষয়টিও উল্লেখ করেন। একই সাথে অভিযুক্ত প্রশান্ত কুমার বোসের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ঢাকা স্মারক নং- ৪৬.০৩.০০০০.০০১.১৯.০০৮.৮৮-১৫৩৬, তারিখ ১২/০৯/২০১৯ এবং স্থানীয় সরকার বিভাগ, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ২৭/১০/২০২০ ইং তারিখের স্মারক নং- ৪৬.০০.০০০০.০৮৩.১৯.০৪৪.১৭-১৯১৩ এ চিঠিতে উল্লেখ করেন। 

০৫/১১/২০২০ ইং তারিখে ইবনে মায়াজ প্রামানিক বাদী হয়ে অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয়ের পত্রের আলোকে প্রশান্ত কুমার বোসের বিরুদ্ধে রমনা মডেল থানায় এজাহার দায়েরের আবেদন করেন, যার স্মারক নং ৪৬৮। 

০৫/১১/২০২০ ইং তারিখে রমনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপ পরিচালক, দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়; ঢাকা-১ এ এক পত্রের মাধ্যমে উক্ত অভিযোগের অপরাধ দুদকের তফসিলভুক্ত উল্লেখ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রেরন করেন, যার স্মারক নং- ৫০১৬।

দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও সরকারী কর্মকমিশনের পত্র জাল করার মত গুরুতর অপরাধের তদন্ত অত্যন্ত ধীরগতিতে চলছে। এনিয়ে দুদকের কার্যক্রমে খোদ সরকারী কর্ম কমিশন ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

এ ব্যাপারে সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মোঃ আখতার হামিদ ভুইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, "তদন্ত কর্মকর্তা ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করে দিয়েছেন। আমরা অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট বিভাগে নথি চেয়ে পত্র প্রেরন করেছি"।

তিনি অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে বলেন যে কোন অভিযুক্ত ব্যক্তির দুদকের তদন্ত থেকে পার পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। 

Unauthorized use or reproduction of The Finance Today content for commercial purposes is strictly prohibited.


Popular Article from FT বাংলা